পরীমনির পক্ষে তসলিমা নাসরিন

‘আমি দূর থেকে আমার শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা জানাচ্ছি।’ চিত্রনায়িকা পরীমনির পক্ষে এভাবেই নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশি লেখক তসলিমা নাসরিন। এই বিতর্কিত লেখক মনে করেন, যেহেতু অনেকে পরীমনিকে ‘নাগালে পেলে তাকে ছিঁড়ে ফেলবে, ছুঁড়ে ফেলবে, পুড়িয়ে ফেলবে, পুঁতে ফেলবে, ধর্ষণ করবে, খুন করবে, কুচি কুচি করে কেটে কোথাও ভাসিয়ে দেবে‘ সেহেতু পরীমনি ‘সৎ মেয়ে, সাহসী মেয়ে, সোজা কথার মেয়ে।’ তবে তিনি স্বীকার করেছেন তিনি বাংলাদেশের সিনেমা দেখেন না এবং পরীমনির নামও আগে শোনেননি।

গত ১৩ জুন ধর্ষণ চেষ্টা ও নির্যাতন অভিযোগ তুলে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন পরীমনি। পরে এই ঘটনা থানা পর্যন্ত গড়ায়। তিনি অভিযোগ করেন, শিল্পপতি নাসির ইউ মাহমুদ তাকে লাথি মারেন এবং জোর করে তার মুখে মদের গ্লাস চেপে ধরেন। এ সময় তার মেকআপ আর্টিস্ট জিমিকেও মারধর করা হয়। সে ঘটনাকে কেন্দ্র করে অনেকেই ফেসবুকে পরীমনির বিরুদ্ধেই নানা মন্তব্য করেন। সে প্রসঙ্গেই ৪ জুলাই রাতে পরীমনির পক্ষে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লিখলেন ‘নির্বাচিত কলাম’ ও ‘আমার মেয়েবেলা’র লেখক তসলিমা।

থ্রিসিক্সটি বিনোদন-এর পাঠকদের জন্য পুরো স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো :

ফেসবুকে শিং মাছের মতো দেখছি প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে উঠছে বাংলাদেশের  নায়িকা পরীমণির বিরুদ্ধে কুৎসিত সব গালাগালি। কোনও মেয়ের বিরুদ্ধে যখন লোকেরা ক্ষেপে ওঠে, তাকে দশদিক থেকে হামলা করতে থাকে, এমন উন্মত্ত হয়ে ওঠে যেন নাগালে পেলে তাকে ছিঁড়ে ফেলবে, ছুঁড়ে ফেলবে, পুড়িয়ে ফেলবে, পুঁতে ফেলবে, ধর্ষণ করবে, খুন করবে, কুচি কুচি করে কেটে কোথাও ভাসিয়ে দেবে , তখন আমার ধারণা  হয় মেয়েটি নিশ্চয়ই খুব ভালো মেয়ে, সৎ মেয়ে, সাহসী মেয়ে, সোজা কথার মেয়ে।

আমার নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা এটাই বলে।

বাংলাদেশের সিনেমা আমি দেখি না। পরীমণির নামও আগে শুনিনি। তবে তাকে আমি দূর থেকে আমার শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা জানাচ্ছি। সব মেয়ে স্ট্রাগল করে না, কিছু মেয়ে করে। কিছু মেয়ে স্ট্রাগল করে সব মেয়ের জন্য যুগে যুগে বেটার পরিস্থিতি আনে। এই স্ট্রাগল করা কিছু মেয়েই একেকটা মাইলফলক।

পূর্বের খবরগুলোকে হবেন ‘মাস্টারজি’
পরবর্তী খবরগুলো‘প্রতীক্ষা’ ভেঙে ফেলা হচ্ছে!

এমন আরও সংবাদ

রিপ্লাই দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন

fourteen − ten =

সর্বশেষ বিনোদন