নায়ক রাজ্জাক কেন তার মাথা ফাটিয়েছিলেন

নায়ক রাজ্জাক

ঢাকাই সিনেমার নায়ক রাজ রাজ্জাক ষাটের দশ থেকে শুরু করে প্রায় তিন দশক সফল চিত্রনায়ক হিসেবে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে দাপটের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। তার আসল নাম আব্দুর রাজ্জাক।

১৯৪২ সালে কলকাতায় জন্ম নেয়া আব্দুর রাজ্জাক, চলচ্চিত্রে শুধু রাজ্জাক নামেই আবির্ভূত হন। ১৯৬৪ সালে শরণার্থী হয়ে ঢাকায় আসেন তিনি। নেমে পড়েন ঢাকাই চলচ্চিত্রে। দু-একটা সিনেমায় ছোটখাটো চরিত্রে অভিনয় করা দিয়ে শুরু। প্রথম নায়ক হন ১৯৬৭ সালে মুক্তি পাওয়া ‘বেহুলা’ সিনেমায়। সেই সিনেমার পরিচালক ও চিত্রনাট্যকার ছিলেন জহির রায়হান।

এরপর রাজ্জাকের চলচ্চিত্রযাত্রায় আসতে থাকে একের পর এক সফল সিনেমা। রূপ ও অনবদ্য অভিনয়ের কারণে তিনি হয়ে উঠেছিলেন জীবন্ত কিংবদন্তি। অভাবনীয় ও অপ্রতিদ্বন্দ্বী নৈপুণ্যের কারণে তিনি ভূষিত হন ‘নায়করাজ’ অভিধায়।

অনেকেই জানেন না, এ অভিধা রাজ্জাককে দিয়েছিলেন প্রয়াত সাংবাদিক ও চলচ্চিত্রকার আহমদ জামান চৌধুরী। তিনি ছিলেন চলচিত্রবিষয়ক পত্রিকা ‘চিত্রালী’র সম্পাদক আহমদ জামান চৌধুরী। যিনি রাজ্জাককে করেছিলেন ‘নায়করাজ’, তার মাথাই ফাটিয়ে দিয়েছিলেন রাজ্জাক! কেন?

ঢাকা ক্লাবের এক অনুষ্ঠানে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার সঠিক কারণ অবশ্য জানা যায়নি। তবে ঘটনা মামলা পর্যন্ত গড়িয়েছিল। জানা যায়  তখনকার চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব খান আতাউর রহমান, নারায়ণ ঘোষ মিতা, কাজী জহিরসহ অনেকেই তখন রাজ্জাকের ওপর বিরক্ত হয়েছিলেন।

ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা দ্য ডেইলি স্টার বলছে, খবর অনুযায়ী, ঘটনাটা খারাপের দিকে মোড় নিচ্ছিল একটি মহলের চক্রান্তে। রাজ্জাককে মামলায় জড়িয়ে তার ক্যারিয়ার শেষ করে দিতে চেয়েছিল কেউ কেউ।

তবে তা হয়নি। নায়ক ফারুকের মধ্যস্থতায় এই সমস্যার সমাধান হয়। ফারুক রাজ্জাককে নিয়ে হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহমদ জামান চৌধুরীকে দেখতে যান। সেখানেই এই ঘটনার সমাপ্তি ঘটে।

উল্লেখ্য, আহমদ জামান চৌধুরী ২০১৩ সালের ৬ মার্চ  শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। অন্যদিকে, ২০১৭ সালের ২১ আগস্ট ৭৭ বছর বয়সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় ‘নায়করাজ’ রাজ্জাকের।

এমন আরো সংবাদ

রিপ্লাই দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন

five × 1 =

সর্বশেষ বিনোদন