বড় পর্দায় বব মার্লি

বব মার্লি

বব মার্লি, বঞ্চিত ও নির্যাতিত মানুষের কণ্ঠস্বর। মানুষের অধিকারের জন্য তার লেখা, সুর আর কণ্ঠ ছিল সদা জাগ্রত। জ্যামাইকান কিংবদন্তি শিল্পী ১৯৮১ সালে মাত্র ৩৬ বছর বয়সে ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এতো অল্প বয়সে সারা দুনিয়া জুড়ে অগণিত ভক্ত খুব কম শিল্পীর জীবনেই ঘটেছে। এবার তার ভক্তদের জন্য খুশির খবর নিয়ে এসেছেন পরিচালক রেইনাল্ডো মার্কস গ্রিন।
সংবাদমাধ্যম ডেডলাইন-এর খবর অনুযায়ী, প্যারামাউন্ট পিকচার্স-এর ব্যানারে বব মার্লির বায়োপিক নির্মাণ করতে যাচ্ছেন এই পরিচালক। বব মার্লির চরিত্রে অভিনয় করবেন হলিউডের ‘ওয়ান নাইট ইন মিয়ামি’ তারকা কিংসলে বেন-আদির।

বব মার্লির জন্ম ১৯৪৫ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি জ্যামাইকার সেন্ট অ্যানের এক বস্তিতে। জন্মের পর থেকেই তিনি দেখেছেন তার দেশের অশান্ত পরিবেশ, শ্বেতাঙ্গ-কৃষ্ণাঙ্গ সংঘাতের ভয়াবহতা। এসব দেখে ছোটবেলা থেকেই তার মধ্যে প্রতিবাদী সত্ত্বার জন্ম হয়। সে সত্ত্বার প্রতিফলন তার গান। তিনি হয়ে উঠেছিলেন গণশিল্পী।

জ্যামাইকান রেগে শিল্পী, গিটারিস্ট ও গীতিকার বব মার্লি গেয়েছেন ‘বাফেলো সোলজার’, ‘নো ওম্যান নো ক্রাই’, ‘গেট আপ স্ট্যান্ড আপ’ ও ‘ব্ল্যাক প্রোগ্রেস’-এর মতো বিখ্যাত সব গান।

১৯৮০ সালে কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে বব মার্লি গঠন করেছিলেন ‘ওয়েলার্স’ ব্যান্ড৷ এই ব্যান্ডের হয়ে, কখনো আবার এককভাবেও গান করেছেন তিনি৷ তার ‘বব মার্লি এন্ড দ্য ওয়েলার্স’ অ্যালবামটিকে ১৯৯৯ সালে বিশ শতকের সেরা অ্যালবামের খেতাব দিয়েছিল টাইম ম্যাগাজিন।

এছাড়া ১৯৯৪ সালে রক এন্ড হল অব ফেম: রোলিং স্টোন-এ সর্বকালের সেরা ১০০ শিল্পীর তালিকায় ১১তম স্থান লাভ করেন বব।

এমন আরো সংবাদ

রিপ্লাই দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন

2 × four =

সর্বশেষ বিনোদন