দেড় সপ্তাহ হাসপাতালে থাকবেন নাঈম

দীর্ঘ সাত ঘণ্টার সফল বাইপাস সার্জারি শেষে নব্বইয়ের দশকের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক নাঈম মুরাদের জ্ঞান ফিরেছে। বর্তমানে তিনি চিকিৎসকদের নিবিড় পর্যবেক্ষণে আছেন। স্বামীর সুস্থতার জন্য ভক্তদের কাছে দোয়া চেয়েছেন তার স্ত্রী অভিনেত্রী তানিয়া শাবনাজ।
দৈনিক প্রথম আলো সূত্রে জানা যায়, ৭ নভেম্বর রাত দুইটা থেকে সকাল নয়টা পর্যন্ত টানা নাঈমের হৃৎপিণ্ডে অস্ত্রোপচার চলে। এর প্রায় পাঁচ ঘণ্টা পর তার জ্ঞান ফিরেছে। হাসপাতাল থেকে শাবনাজের ছোট বোন অভিনেত্রী তাহমিনা সুলতানা মৌ বলেন, “আলহামদুলিল্লাহ, ভাইয়ার (নাঈম) জ্ঞান ফিরেছে। ইশারায় আপার (শাবনাজ) সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি পর্যবেক্ষণে আছেন।’’
নাঈমের হৃৎপিণ্ডে দীর্ঘদিন ধরেই সমস্যা ছিলো বলে জানান মৌ। বলেন, “বেশ কদিন ধরেই তার বুকে ব্যথা। আস্তে আস্তে ব্যথা বাড়ছিলো। ভাইয়া ভেবেছিলেন, ব্যাকপেইন। ব্যথা বাড়তে থাকায় চিকিৎসককে দেখাতে হাসপাতালে আসেন। শারীরিক পরীক্ষা–নিরীক্ষা করে চিকিৎসকেরা দ্রুত অপারেশনের পরামর্শ দেন। গত রাতে (৭ নভেম্বর) ভাইয়ার অপারেশন হয়েছে। আলহামদুলিল্লাহ, বাইপাস সার্জারিটা ভালো মতোই হয়ে গেছে। চিকিৎসকেরা তাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন।’’ নাঈমকে প্রায় দেড় সপ্তাহ হাসপাতালে থাকতে হবে বলে জানা গেছে।
নাঈম-শাবনাজ জুটির অভিষেক ঘটে ‘চাঁদনী’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে। ১৯৯১ সালের ৪ অক্টোবর চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায়। ‘বিষের বাঁশি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সময় ব্যক্তিগত জীবনেও ভালোবাসার বন্ধনে জড়িয়ে পড়েন দুজন। ১৯৯৪ সালে তারা হঠাৎই বিয়ে করে ফেলেন। ২৭ বছরের সংসারজীবনে তারা দুই মেয়ের বাবা-মা।

এমন আরও সংবাদ

রিপ্লাই দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন

15 − nine =

সর্বশেষ বিনোদন