‘রোডরানার’ ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স

২০২১ সালের ১১ জুন ট্রিবেকা ফিল্ম ফেস্টিভালে ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয় মরগ্যান নেভিলের ডকুমেন্টারি ‘রোডরানার’। প্রয়াত নন্দিত শেফ ও কথাসাহিত্যিক অ্যান্থনি বরডুইনের জীবনদর্শন নিয়ে নির্মিত এ ডকুমেন্টারি ১৬ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পাওয়ার পর প্রশংসায় পঞ্চমুখ সমালোচকেরা। লাখ লাখ মানুষের টুইট, “যদি অ্যান্থনি বরডুইন এটা দেখতে পেতেন!” তবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের সাহায্যে বরডুইনের গলার স্বর নকল করা নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছে ডকুমেন্টারিটি।

অ্যান্থনি বরডুইন ২০১৮ সালের ৮ জুন আত্মহত্যা করেন। সিএনএন শো ‘পার্টস আননোন’-এর শ্যুটিংয়ে তিনি ফ্রান্সে ছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স ছিল ৬১ বছর। ভ্রমণ এবং সংস্কৃতির প্রতি নিজস্ব সম্মানসূচক দৃষ্টিভঙ্গির কারণে তিনি ব্যাপকভাবে জনপ্রিয়।

২০১৯ সালের অক্টোবরে বরডুইনকে নিয়ে এ ডকুমেন্টারিটি নির্মাণের ঘোষণা দেন মরগ্যান নেভিল। এতে দুজন শেফ ও লেখক – আমেরিকান ডেভিড চ্যাং এবং ফ্রেঞ্চ এরিক রিপার্ট-এর সাক্ষাৎকার আছে। আরও আছে পার্টস আননোন শো-এর নির্মাণের সাথে যারা জড়িত ছিলেন, তাঁদের সাক্ষাৎকার। দ্যা মডার্ন লাভারস-এর ‘রোডরানার’ গানটি এ ডকুমেন্টারিতে ব্যবহার করা হয়েছে।

রিভিউ ওয়েবসাইট রটেন টমেটোজে ৯২% টমেটোমিটার রেটিং এবং ৯৪% অডিয়েন্স স্কোর অর্জন করেছে এ ডকুমেন্টারি, মেটাক্রিটিক স্কোর ৭৯%। বেশিরভাগ সমালোচকের ভাষায়, বাস্তবতার সীমারেখায় থেকে বরডুইনের বর্ণিল জীবনকে ফুটিয়ে তুলতে পেরেছে এ ডকুমেন্টারি।

হলিউড রিপোর্টার-এর প্রতিবেদক ড্যানিয়েল ফিয়েনবার্গ লেখেন, “এমন পীড়াদায়ক এক ডকুমেন্টারি, না শুকোনো এক ক্ষতের খুব কাছাকাছি পৌঁছে যায়, যেমনটা আমি আগে দেখিনি। আমি ‘রোডরানার’-এ দেখতে পাই জটিল ও ক্রমশ পরিণত হয়ে ওঠা এক বিষাদময় টিভি ব্যক্তিত্বের প্রতিচ্ছবি। কোনো কারণে বাঁচার ইচ্ছা হারিয়ে ফেলেছে এমন একজন মানুষকে নয়।“

কলাইডার-এর ম্যাট গোল্ডবার্গ অবশ্য লেখেন, “চলচ্চিত্রটির শেষদিকে নেভিল এক মারাত্মক ভুল করে বসেন, যখন তিনি বরডুইনের আত্মহত্যার ‘উত্তর’ দেওয়ার চেষ্টা করেন। এর কোনো উত্তর খুঁজে পাওয়া যাবে না, আর পেলেও তাতে কিছু আসবে-যাবে না।“

বরডুইনের গলা নকল করতে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ব্যবহারের পক্ষে পরিচালক মরগ্যান নেভিল নানা যুক্তি দেখালেও তাতে সমালোচকেরা সন্তুষ্ট নন। এ বিষয়ে ইথিক্স প্যানেলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে – মরগ্যানের এমন মন্তব্যের পর অনেকে মনে করেন, এ সিদ্ধান্ত যে ত্রুটিপূর্ণ তা মরগ্যান নিজেই জানেন। বরডুইনের প্রাক্তন স্ত্রী অট্টাভিয়া বিউসিয়া টুইট করেন, “এ বিষয়ে টনির (বরডুইন) কোনো আপত্তি থাকার কথা নয় – এমন কিছু আমার বলার প্রশ্নই আসে না।“ এ প্রযুক্তি ব্যবহারের কথা প্রাথমিকভাবে গোপন রেখেছিলেন মরগ্যান। অবশ্য তাঁর মন্তব্য, নির্মাণকালে কোনো আপত্তি আসেনি।

এমন আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রেই সাড়ে চার মিলিয়ন ডলার আয় করেছে ‘রোডরানার’।

এমন আরো সংবাদ

রিপ্লাই দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন

8 + four =

সর্বশেষ বিনোদন