শাকিব খানের ‘সোয়েগ’ ৪০ লাখে

সুপারস্টার শাকিব খান ৩০ জুন হুট করেই তার  অভিনীত ও প্রযোজিত ‘পাসওয়ার্ড’ সিনেমার ‘সোয়েগ’ গানটির মিউজিক ভিডিও ফেসবুকে শেয়ার করেছেন। শেয়ার করেছেন এটি খবর নয়, কেন শেয়ার করলেন সে কারণটিই খবর। গানটি এসকে ফিল্মস ইউটিউব চ্যানেল থেকেই ৪০ লাখেরও বেশিবার দর্শকেরা উপভোগ করেছেন।

ঢালিউডের ‘নবাব’ তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে গানটি আবারো শেয়ার করেছেন—তবে লেখেননি কিছু। শেয়ার করা লিংকের থাম্বে এখনো ৩০ লাখ ভিউ হওয়ার ঘোষণা। লিংক ধরে ইউটিউবে পৌঁছেই জানা গেলো গানটি ইতিমধ্যে ৪ মিলিয়ন ভিউয়ের মাইলফলক অতিক্রম করে গেছে।

শেয়ার করা লিংকের নিচে প্রায় ৪০০ মন্তব্য জমা হয়েছে। প্রিয় নায়কের গানের বিপুল জনপ্রিয়তায় খুশি ভক্তরা। বেশিরভাগ ভক্তই ইতিবাচক মন্তব্য করেছেন। একজন লিখেছেন, ‘জাস্ট অস্থির একটা গান ছিল। হলে এই গানে দর্শকেরা খুব এনজয় করতো।’ আরেকজন লিখেছেন, ‘একই গান বলিউডে কেউ করলে ভিউস হতো কমপক্ষে ৫০ মিলিয়ন।’ নেতিবাচক মন্তব্যও কিছু আছে, যেমন এক ভক্ত স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তার বুবলীকে ভালো লাগে না—অন্য নায়িকা হলে নাকি আরো হিট হতো। ইউটিউবে জমা কমেন্টের সংখ্যা প্রায় ৭ হাজার।

তবে এই পাসওয়ার্ড সিনেমার অন্য একটি গান নিয়ে বিতর্কও আছে। অভিযোগ ওঠে নব্বইয়ের দশকের তুমুল জনপ্রিয় গান ‘পাগল মন’-এর প্রথম দুই লাইনসহ সুর ও সংগীত নকল করে এই সিনেমার ‘পাগল মন’ গানটি করা হয়েছে। অভিযোগ করেন পাগল মন গানের শিল্পী দিলরুবা খান নিজেই। এবিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ডিভিশনে অভিযোগও করা হয়েছিলো। এতো কিছুর পরও শাকিবের ‘পাগল মন’ ইউটিউবে এখন পর্যন্ত ২৬ মিলিয়ন ‘ভিউ’ কুড়িয়ে নিয়েছে।

মালেক আফসারী পরিচালিত ‘পাসওয়ার্ড’ এসকে ফিল্মস ওরফে শাকিব খান ফিল্মসের ব্যানারে করা দ্বিতীয় সিনেমা। ২০১৯ সালের ঈদুল ফিতর উপলক্ষে মুক্তি পায় ছবিটি। ছবিটি দর্শকদের মন জয় করতে সফল হয়েছিল। আর সেই সফলতাকে কাজে লাগেই আসবে ‘পাসওয়ার্ড ২’—এই ঘোষণা শাকিব নিজেই দিয়েছিলেন তখন। ছবির পাশাপাশি ‘পাসওয়ার্ড’-এর ‘সোয়েগ’ গানটিও বেশ জনপ্রিয় হয়। গানটির সংগীত করেছেন স্যাভি গুপ্ত, লিখেছেন প্রিয় চট্টোপাধ্যায়, গেয়েছেন ইমরান এবং কোরিওগ্রাফি করেছেন বাবা ইয়াদব। তুরস্কের একাধিক মনোরম স্থানে গানটির চিত্রায়ন হয়।

দৈনিক প্রথম আলোকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সিনেমাটি সম্পর্কে শাকিব বলেছিলেন,  ‘ভালো ছবি। গল্প, মেকিং থেকে শুরু করে, ছবির গান, গানের লোকেশন—সবকিছুতেই ছিল ভিন্নতা। বাংলাদেশের সিনেমাপ্রেমী দর্শক এই ছবিতে নতুন কিছু পেয়েছেন। যাঁরা ছবিটি দেখছেন, তাঁরা বলেছেন ‘‘পাসওয়ার্ড’’ একটি পরিচ্ছন্ন ও টোটাল সিনেমা, আধুনিক মানের ছবি এবং চেয়ারম্যান সাহেব, চৌধুরী সাহেব থেকে বেরিয়ে সম্পূর্ণ নতুন গল্প আর নতুন আঙ্গিকের ছবি।’

এমন আরও সংবাদ

রিপ্লাই দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন

7 − five =

সর্বশেষ বিনোদন