ঋতুপর্ণার জনপ্রিয়তা বুদ্ধদেবের পছন্দ ছিল না!

দুই বাংলার সংস্কৃতি অঙ্গনে নেমেছে শোকের ছায়া। প্রয়াত হলেন বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। ১০ জুন সকালে দক্ষিণ কলকাতায় নিজ বাড়িতে মৃত্যু হয় এই কবি ও পরিচালকের। মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর।

প্রয়াত এই কবি ও পরিচালকের মৃত্যুতে শোকাহত দুই বাংলার সাংস্কৃতিক জগত। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কবিকে নিয়ে অভিনেতা ও অভিনেত্রীরা তাদের স্মৃতি কথা তুলে ধরেন। তাদের মধ্যে অন্যতম অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। পরিচালককে কেন্দ্র করে তিনি তার ভেরিফাইড ফেসবুকে অ্যাকাউন্টে একটি দীর্ঘ পোস্ট করেন।

পোস্টে তিনি জানান, দীর্ঘ ২০ বছর আগে ‘মন্দ মেয়ের উপাখ্যান’ ছবিতে যৌনকর্মীর চরিত্রে অভিনয় করার জন্য পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত তাকে প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কাজটি তার জন্য খুব চ্যালেঞ্জিং ছিল এবং কাজটি করতে গিয়ে নায়িকা ভীষণ রকমের বকাও শুনেছিলেন। অভিনেত্রীর মতে কাজের বিষয়ে তিনি খুব বিচক্ষণ ছিলেন। শুটিংয়ে কোন কিছু এদিক সেদিক হলে তিনি ঠিক না হওয়া পর্যন্ত কাজ বন্ধ করে দিতেন। সেসাথে ঋতু যুক্ত করেন, ‘এখন বুঝি আমার অভিনয় সত্ত্বাকে কেমন করে নির্মাণ করেছিলেন তিনি।’

ঋতুপর্ণা আরও লেখেন পরবর্তীতে তিনি ‘উত্তরা’ শিরোনামে আরেকটি ছবির প্রস্তাব পেয়েছিলেন পরিচালকের কাছ থেকে তবে ব্যস্ত থাকায় কাজটি তিনি করতে পারেননি। তারকা লিখেছেন, ‘ আঙ্কেল ‘উত্তরা’ করছেন তখনও আমার ডাক এসেছিল। সে সময় অন্য ছবির চাপ ছিল, আমি কোনও ভাবেই ‘উত্তরা’য় কাজ করতে পারলাম না। এই আফসোস আমার চিরজীবনের।’

ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত তার শুটিংয়ের একটি দিনের কথা উল্লেখ করে লেখেন, শুটিংয়ের সময় অজস্র লোক ভিড় করতো তাকে দেখার জন্য। তবে তার এই জনপ্রিয়তা পছন্দ ছিল না বুদ্ধদেবের। এই ভিড় তিনি একদমই পছন্দ করতেন না।

ঋতু লেখেন, ‘শুটিংয়ের জায়গায় অজস্র লোকের ভিড় দেখে আঙ্কেল রেগে গেলেন এবং বললেন, তুমি যে এত জনপ্রিয় আমি তা জানতাম না! আমার ছবি করতে বেশ অসুবিধা হচ্ছে।’ ঋতুপর্ণা আরও বলেন, ‘ঠোঁটকাটা মানুষ ছিলেন। বুঝিয়ে দিলেন আমার এই জনপ্রিয়তা ওর একেবারেই পছন্দ নয়।’

এমন আরও সংবাদ

রিপ্লাই দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন

five × 3 =

সর্বশেষ বিনোদন